বন্ধ ঝুঁকিপূর্ণ মার্কেট, সচেতনতা বৃদ্ধিতে তৎপর সিসিক

newsup
  • আপডেট টাইম : June 01 2021, 10:34
  • 512 বার পঠিত
বন্ধ ঝুঁকিপূর্ণ মার্কেট, সচেতনতা বৃদ্ধিতে তৎপর সিসিক

নিউজ ডেস্কঃ  সিলেটে এখনো ভূমিকম্প আতংক কাটেনি। গত দুই দিন কয়েক দফা মৃদু ভূমিকম্পের পর গতকাল সোমবার দুপুরে হয়েছে তুমুল বৃষ্টি। এতে সিলেট নগরীর আম্বরখানায় পুকুরপাড় সংলগ্ন একটি তিনতলা ভবন পড়েছে ঝুঁকিতে। অন্যদিকে, ভূমিকম্প পরিস্থিতি মোকাবেলায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে নগর ভবন। সিলেট আন্তর্জাতিক সেবা সংস্থা রেডক্রিসেন্ট সোসাইটিও করেছে প্রস্তুতিমূলক সভা। ১০ দিনের জন্য বন্ধ করে দেয়া সিলেটের ঝুঁকিপূর্ণ ৬টি মার্কেটেও অভিযান চালিয়েছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক)। নগরীতে সচেতনতামূলক মাইকিং চলছে।

নগর ভবন সূত্র জানায়, ভূমিকম্প পরিস্থিতি মোকাবেলায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে বন্ধ ঘোষিত ৬ মার্কেটে অভিযান পরিচালনা করেছেন সিসিক ও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। গতকাল সোমবার সিসিকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুনন্দা রায় ও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মেজবাহ উদ্দিন অভিযান পরিচালনা করেন।

সিসিকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নগরীর সুরমা মার্কেট, সিটি সুপার মার্কেট, মধুবন সুপার মার্কেট, সমবায় মার্কেট, মিতালী ম্যানশন ও রাজা ম্যানশন পরিদর্শন করে আভিযানিক দল। এসময় মিতালী ম্যানশনসহ দু একটি মার্কেটের কিছু দোকান খোলা থাকতে দেখেন তারা। তাৎক্ষণিকভাবে সেগুলো বন্ধ করে দেয়া হয় এবং মাইকিং করে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ভূমিকম্পে করণীয় নির্দেশনাবলী প্রচার ও সতর্ক থাকতে অনুরোধ জানানো হয়। এর আগে রোববার সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে সিলেট জেলা প্রশাসন, গণপূর্ত বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস, মহানগর পুলিশসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তর ও সংস্থার প্রতিনিধিদের নিয়ে পরিচালিত অভিযানে নগরের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকা করে ভবন/মার্কেট ১০ দিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

এদিকে, আতঙ্কিত না হয়ে সচেতনতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে ভূমিকম্পে নাগরিকদের করণীয় বিষয়ে নির্দেশনাবলী মাইকিং এর মাধ্যমে নগরজুড়ে প্রচার করা হচ্ছে। তবে দুপুর থেকে সিলেট নগরী ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় তুমুল বৃষ্টি হয়। এতে সিলেট নগরীর আম্বরখানার মণিপুরি পাড়ার পুকুরের পাশের একটি তিনতলা ভবন ঝুঁকিতে পড়ে। খবর পেয়ে সিটি কর্পোরেশনের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

অপরদিকে, সিসিকের নির্দেশনা মেনে গতকাল সোমবার সকাল ১০টা থেকে সেগুলো বন্ধও রয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ এসব মার্কেট ও দোকানের ব্যবসায়ীরা বেচাকেনা বন্ধ রাখায় মার্কেটের ফটক থেকে ক্রেতারা ফিরে যেতে দেখা গেছে। ছয়টি মার্কেটেরই প্রধান ফটক বন্ধ। ফটকের সামনে শুধু নিরাপত্তাপ্রহরীরা দায়িত্ব পালন করছেন।
অপরদিকে ভূমিকম্পসহ যেকোনো দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুতিমূলক জরুরী বৈঠক সম্পন্ন করেছে রেড ক্রিসেন্ট সিলেট ইউনিট। যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবীদের প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

অন্যদিকে কয়েকদিনের প্রচণ্ড তাপদাহের পর সিলেটে বৃষ্টি হয়েছে। গতকাল সোমবার হয়েছে মুসলধারে বৃষ্টি। গতকাল সোমবার সকাল থেকেই সিলেটের আকাশ ছিল মেঘাচ্ছন্ন। আবহাওয়া অধিদফতর পূর্বাভাসও দিয়েছিল, বৃষ্টি হবে। বেলা সাড়ে ১১টা থেকে হয় তুমুল দমকা হাওয়া। এরপরই বৃষ্টি। বিকেলের টানা বৃষ্টিতে কোথাও কোথাও জলাবদ্ধতাও সৃষ্টি হয়। সিলেট আবহাওয়া অফিস, গতকাল সোমবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সিলেটে ৬৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে।
প্রসঙ্গত: শনিবার দিনে ও রাতে কয়েক দফা এবং রোববার ভোর রাতে আরেকবার সিলেট নগরী এলাকায় ভূমিকম্প হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে দুদিন জরুরি সভা করে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ একটি বিশেষ দল গঠন করে। সে দলের নেতৃত্বে রয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। বিশেষ দলটিতে মেয়র ছাড়াও জেলা প্রশাসন, গণপূর্ত বিভাগ, ফায়ার সার্ভিস, মহানগর পুলিশসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের প্রতিনিধি রয়েছেন। সেই থেকে নগরীতে ভূমিকম্প সচেতনতামূলক কর্মসূচি চলছে।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর