শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে নীলক্ষেত অবরোধ

newsup
  • আপডেট টাইম : June 03 2021, 09:07
  • 512 বার পঠিত
শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে নীলক্ষেত অবরোধ

নিউজ ডেস্কঃ  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার ঘোষণা দিলেও তাদের অধীনে থাকা সাত কলেজের বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত জানায়নি। এর ফলে আবাসিক হল ও ক্যাম্পাস খুলে পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাতটি কলেজের শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার (৩ জুন) সকাল ১১টায় নীলক্ষেত মোড়ে অবস্থান নিয়ে এ দাবি জানান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেছেন, সাত কলেজের অসংখ্য শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসের হলে থেকে পড়াশোনা করে। করোনার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি হলও বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেকেই এখন বাড়িতে অবস্থান করছেন। এখন যদি এসব শিক্ষার্থীদের সশরীরে পরীক্ষা নেওয়া হয়। তবে ঢাকায় এসে মেস ভাড়া করে অথবা নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় থাকতে হবে। অনেক দরিদ্র শিক্ষার্থীর পক্ষেই এটি সম্ভব নয়। তাই সরাসরি পরীক্ষা নেওয়া শুরু হলে অবশ্যই কলেজের হল খুলে দিতে হবে। না হলে শিক্ষার্থীরা প্রচণ্ড বিপাকে পড়বেন।

শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচিতে রাজধানীর নীলক্ষেত সড়কে সৃষ্টি হয়েছে যানজট। ছবি: ভোরের কাগজ

ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী জোনায়েদ বলেন, হল না খুলে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ অমানবিক। কেননা অনেক দরিদ্র শিক্ষার্থী হলে থেকে সামান্য টিউশনি অথবা পার্টটাইম চাকরি করে নিজের পড়াশুনার খরচ নিজে বহন করে। এমন অবস্থায় এমনিতেই সবার অর্থনৈতিক অবস্থা খুবই নাজুক। তার মাঝেও যদি হলে থাকা বিপুল পরিমাণ শিক্ষার্থীদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ঢাকায় থেকে পরীক্ষা দিতে হয় তবে এটি শিক্ষার্থীদের জন্য কঠিন হয়ে যাবে। তাই অবিলম্বে ক্যাম্পাস খুলে দিতে হবে।

আন্দোলনরত তিতুমির কলেজের শিক্ষার্থী হোসেন বলেন, সাত কলেজের অধিকাংশ শিক্ষার্থী মধ্যবিত্ত ও দরিদ্র পরিবারের সন্তান। এরা হলে থেকে কোন রকমের পড়াশোনা চালিয়ে নেয়। গতবারের পরীক্ষায়ও নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় শিক্ষার্থীদের হলে অথবা বাইরে থাকতে হয়েছে এতে করে শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছেন।

মোদের দাবি একটাই হল-ক্যাম্পাস খোলা চাই, পরীক্ষা নেওয়ার তিন মাসের মধ্যে হল-ক্যাম্পাস খুলে দিতে হবে- প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল এসব স্লোগান।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর