দেড় বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি পেল সিলেটের দুই উপজেলা আ.লীগ

newsup
  • আপডেট টাইম : June 06 2021, 10:58
  • 526 বার পঠিত
দেড় বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি পেল সিলেটের দুই উপজেলা আ.লীগ

নিউজ ডেস্কঃ  ২০১৯ সালের ৫ ডিসেম্বর জেলার সম্মেলনকে সামনে রেখে ১৩ উপজেলার মধ্যে ৯টির পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করেছিল আওয়ামী লীগ। কিন্তু সিলেট সদর, দক্ষিণ সুরমা, গোলাপগঞ্জ, বিয়ানীবাজার—এই চার উপজেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন যেন ‘গলার কাঁটা’ হয়ে বিঁধে। অবশেষে প্রায় দেড় বছরের মাথায় চারটির মধ্যে দুটি উপজেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দিয়ে সেই গলার কাঁটা যেন অর্ধেক নামল।

গতকাল শনিবার দুপুরে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সভায় গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার উপজেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়। রাতে জেলার প্রচার সেল থেকে প্রকাশ করা হয়েছে ৭১ সদস্যবিশিষ্ট দুটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি।

এ বিষয়ে জেলার সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান প্রথম আলোকে বলেন, গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যে প্রস্তাবিত কমিটি হয়েছিল, সেই কমিটিতে রদবদল হয়েছে। কমিটি নিয়ে বিভিন্ন বিতর্ক থাকায় জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যদের নিয়ে আলোচনা সাপেক্ষে অনুমোদন দেওয়া হয়। বাকি দুই উপজেলা সিলেট সদর ও দক্ষিণ সুরমার পূর্ণাঙ্গ কমিটি কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনা করে অনুমোদন দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

দলীয় সূত্র জানায়, ২০১৯ সালের ১৩ নভেম্বর গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের এক মাস পর ১৮ ডিসেম্বর প্রবীণ নেতা ইকবাল আহমদ চৌধুরীকে সভাপতি ও রফিক আহমদকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করে জেলা আওয়ামী লীগ। ১৪ নভেম্বর বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও কাউন্সিল হয়। এতে সরাসরি ভোটে বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান সভাপতি ও দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে দুই উপজেলার সাবেক ছাত্রনেতাদের পাশাপাশি নবীন ও প্রবীণের সমন্বয় রাখা হয়েছে।

গোলাপগঞ্জ উপজেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি

সভাপতি ইকবাল আহমদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক রফিক আহমদ। সহসভাপতি লুৎফুর রহমান, মুবিন আহমদ জায়গিরদার, রফিক আহমদ, মস্তাব আহমদ, রুকন উদ্দিন, জিল্লুর রহমান, আবুল ফজল চৌধুরী, মাহমুদ আহমদ চৌধুরী ও জহির উদ্দিন। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী, দেলওয়ার হোসেন, আকবর আলী; আইনবিষয়ক সম্পাদক নিমার আলী, কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক বোরহান উদ্দিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ফরহাদ আহমদ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক নাজিমুল হক, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক আবুল লেইস, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলিম উদ্দিন, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক আবু আহাদ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক এম এ মুমিত, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক আঙ্গুরা বেগম, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক তোতা মিয়া, যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক আবদুল হানিফ খান, শিক্ষা ও মানবসম্পদবিষয়ক সম্পাদক কাজল কান্তি দাস, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক আবদুল মান্নান, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক আবু সুফিয়ান মোহাম্মদ আজম এবং স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক রুমেল সিরাজ।

সাংগঠনিক সম্পাদক খুরশেদ আলম চৌধুরী, সৈয়দ হাছিন আহমদ ও খায়রুল হক। সহদপ্তর সম্পাদক হোসেন আহমদ, সহপ্রচার সম্পাদক মনসুর চৌধুরী ও কোষাধ্যক্ষ শরিফ উদ্দিন আহমদ।

কার্যনির্বাহী সদস্য ময়নুল হক, আতাউর রহমান, কামাল পারভেজ, মখলিছুর রহমান, অজিউর রহমান, এনামুল হক, আর্জুমন্দ আলী, মাহতাব উদ্দিন, নুরুল ইসলাম, তমিজ উদ্দিন, সেলিম উদ্দিন, আবদুস সামাদ, মহসিন মজনু, হেলাল আহমদ, ফয়ছল আহমদ চৌধুরী, আবদুল মালিক, খায়রুল ইসলাম, এম জেড আলম, আবদুল হান্নান, জাফরান জামিল, জয়নাল আবেদীন, আবুল কাশেম, আবদুস সামাদ, ফরিদ উদ্দিন, এম এ ওদুদ, সেলিম উদ্দিন, কামাল উদ্দিন, সৈয়দ এহতেশামুল হক, রুহেল আহমদ, ইসমাইল হোসেন সিরাজী, আজমল হোসেন, অরুণ কুমার দে, কারি তোফায়েল জিলু, শফি আহমদ চৌধুরী ও তারেক আহমদ।

২১ সদস্যের উপদেষ্টা কমিটিতে আছেন আবদুর রহমান, আবুল বশর ছদর উল্লা চৌধুরী, তজম্মুল আলী, জগলুল আহমদ চৌধুরী, ছলমান আহমদ চৌধুরী, ঈসমাইল আলী, সুরুজ আলী, মতিউর রহমান, নজরুল ইসলাম, আসমান আলী, আবদুল মুকিত, শরফ উদ্দিন, আবদুল্লা আল মামুন, আশরাফুজ্জামান, ইমাম উদ্দিন, খন্দকার আশুক আহমদ, কনর মিয়া, হরিপদ দেব, বেলাল আহমদ, আবদুর রাজ্জাক ও আবদুল মান্নান।

বিয়ানীবাজার উপজেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি

সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল। সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল আহাদ, আহমদ হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন হেলাল চৌধুরী, নাজীম উদ্দিন, শামসুদ্দিন খান, মুস্তাক আহমদ, সালেহ আহমদ, আবদুল খালিক ও আশরাফুল ইসলাম। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ চৌধুরী, আবদুস শুকুর, আবুল কাসেম পল্লব; আইনবিষয়ক সম্পাদক জসিম উদ্দিন, কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক ইসলাম উদ্দিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আতিকুর রহমান, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক শিহাব উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমদ, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক আবদুল মুসাব্বির, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জুবের আহমদ, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক ময়নুল ইসলাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক এমাদ উদ্দিন, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক তাহমিনা খাতুন, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল কাদির, যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক আবদুল কুদ্দুস, শিক্ষা ও মানবসম্পদবিষয়ক সম্পাদক আবদুল কাদির, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক আবুল হোসেন, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক আবদুল ওয়াদুদ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক আলমগীর হোসেন।

সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জামাল হোসেন, হুমায়ুন কবির ও মাসুদ হোসেন খান। সহদপ্তর সম্পাদক জহিরুল হক, সহপ্রচার সম্পাদক মো. আমান উদ্দিন ও কোষাধ্যক্ষ গৌছ উদ্দিন খান।

কার্যনির্বাহী সদস্য ময়নুল ইসলাম, শামসুজ্জামান শাহজাহান, ময়নুল হোসেন , মাহমুদ আলী, আবদুস সালাম, জহুর উদ্দিন, আক্তারুজ্জামান আজব আলী, আমির উদ্দিন আলী, মোহাম্মদ হোসেন, সুরমান আলী, কনক কান্তি ধর, নোমান আহমদ, কামরুল হক, সাগর দাশ চৌধুরী, আরবাব হোসেন খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিক উদ্দিন, বেলাল আহমদ, জয়নুল ইসলাম, আবদুল কাদির, কামাল হোসেন, হোসেন আহমদ, সালেহ আহমদ, রফিকুল ইসলাম চৌধুরী, আফজাল হোসেন, লুৎফুর রহমান, শাহিদুর রহমান, আবদুল মান্নান, আছার উদ্দিন, ফয়সল আহমদ, ছাদেক আজাদ, মঞ্জুরুল ইসলাম, পাভেল মাহমুদ, ইকবাল হোসেন, কাওসার আহমদ ও সাইদুল ইসলাম।

২১ সদস্যবিশিষ্ট উপদেষ্টা কমিটিতে আছেন সামস উদ্দিন, মতিউর রহমান, হোসেন আহমদ, তছির উদ্দিন, আবদুল কুদ্দুস মানিক, ফখরুল আলম চৌধুরী, আবদুল বাসিত চৌধুরী, রফিক উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জলিল, দেবাশীষ চক্রবর্তী, হাজী তোরাব আলী, হারিছ উদ্দিন, তাহির আলী খান, রুহুল আলম, ফজলুর রহমান, খসরুজ্জামান খসরু, মো. আমিন উদ্দিন, আবদুস শুকুর, আবদুল কাইয়ুম খান, এ কে এম শাহাবুদ্দিন ও আবদুস শহীদ।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর