বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীতে বারাকা পাওয়ারের ক্রীড়া ও সংস্কৃতি অনুষ্ঠান

newsup
  • আপডেট টাইম : December 17 2021, 05:19
  • 520 বার পঠিত
বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীতে বারাকা পাওয়ারের ক্রীড়া ও সংস্কৃতি অনুষ্ঠান

নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বারাকা পাওয়ার লিমিটেডের উদ্যোগে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী বারাকা পাওয়ার ফেঞ্চুগঞ্জ প্ল্যান্টে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

সকালে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় দিনের কর্মসূচি। সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীতের পরিবেশনের পরই শুরু হয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। সকাল ১১ টায় চার থেকে থেকে আট বছর বয়সী শিশুদের এবং এরপর বারো বছর বয়সীদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। দুপুরের বিরতীর পর নারী অতিথিদের অংশ গ্রহণে এবং এরপর উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বারাকা গ্রুপের চেয়ারম্যান ফয়সল আহমদ চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম রাব্বানী চৌধুরী, বারাকা পাওয়ার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফাহিম আহমদ চৌধুরী, বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মঞ্জুর শাফী চৌধুরী এলিম প্রমুখ। পুরো অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মো. শাহনেওয়াজ চৌধুরী রাজীব ও চৌধুরী তাসনুভা হাজেরা।

বারাকা পাওয়ার লিমিটেডের কর্মকর্তাদের নিয়ে আয়োজিত ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন অর্থ ও হিসাব বিভাগের উপ ব্যবস্থাপক শেখ সালাহ উদ্দিন। দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন ব্যবসা উন্নয়ন বিভাগে উপব্যবস্থাপক এটিএম সামসুল হুদা ও হিসাব বিভাগের জ্যেষ্ঠ নির্বাহী নাজমুল ইসলাম রুবেল।

প্রতিযোগিতায় বারাকা ফ্যাশন লিমিটেডের স্টাফ ক্যাটাগরিতে সেরা হন কোয়ালিটি কন্ট্রোলার মো. সোহেল রানা, কর্মী ক্যাটাগরিতে সেরা হন জেনারেল কোয়ালিটি ইন্সপেক্টর মমতাজ এবং একই ক্যাটাগরিতে প্রথম রানার-আপ হন অপারেটর মোছা. হালিমা আক্তার।

এদিকে বারাকা পাওয়ার লিমিটেডের ফেঞ্জুগঞ্জ পাওয়ার প্ল্যান্টের যান্ত্রিক রক্ষণাবেক্ষণ শাখার উপব্যবস্থাপক আব্দুল মোমিন বছরের সেরা কর্মী নির্বাচিত হন। দ্বিতীয় হন বৈদ্যুতিক রক্ষণাবেক্ষণ শাখার জ্যেষ্ঠ সহকারী ব্যবস্থাপক দিপংকর কুমার দাস ও অপারেশন শাখার শিফট প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলমাস হোসাইন তৃতীয় স্থান অর্জন করেন।

সন্ধ্যায় কেক কেটে বাংলাদেশের ৫০ বছর উদযাপন করা হয়। পরে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়। প্রতিযোগিতা শেষে পরিবেশিত হয় সংগীতানুষ্ঠান। এতে সংগীত পরিবেশন করে নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি ও দোলা বড়–য়া। রাতে র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর